• ১৯ জুলাই ২০২৪ | ৩ শ্রাবণ ১৪৩১

Shongbad Protikshon || সংবাদ প্রতিক্ষণ

আসছে নেপালের ৪০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ

সংবাদ প্রতিক্ষন

প্রকাশিত: ১৪:৪৩, ১০ জুলাই ২০২৪

আসছে নেপালের ৪০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ

আসছে নেপালের ৪০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ

চলতি জুলাইয়ের শেষে ভারতের জাতীয় গ্রিড ব্যবহার করে নেপাল থেকে ৪০ মেগাওয়াট জলবিদ্যুৎ আমদানির চুক্তি সই হবে। এরই মধ্যে নেপাল থেকে ৪০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানির বাণিজ্য চুক্তি চূড়ান্ত করার জন্য বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (বিউবো) নেপাল ইলেকট্রিসিটি অথরিটিকে (এনইএ) চিঠি দিয়েছে। এ চুক্তি চূড়ান্ত হলে বাংলাদেশ নেপাল থেকে প্রতি বছর বর্ষা মৌসুম শুরুর পর ছয় মাস (১৫ জুন থেকে ১৫ ডিসেম্বর) ৪০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করতে পারবে। চুক্তির আওতায় নেপাল আগামী পাঁচ বছর বাংলাদেশে বিদ্যুৎ রপ্তানি করবে। আর এ ক্ষেত্রে নেপালের প্রতি ইউনিট বিদ্যুৎ বিক্রি হবে ৬ দশমিক ৪০ সেন্টে।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, ‘জুলাইয়ের শেষে নেপাল থেকে বিদ্যুৎ আমদানির বিষয়ে চুক্তি সই হবে।

এটি মোটামুটি চূড়ান্ত হয়ে গেছে। এখন ৪০ মেগাওয়াট এবং পরবর্তী সময়ে আরও বিদ্যুৎ আমদানির জন্য আমরা চেষ্টা করছি।’ এ বিষয়ে এনইএ’র নির্বাহী পরিচালক কুলমান জিশিং সম্প্রতি নেপালের একটি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘নেপাল থেকে বাংলাদেশের বিদ্যুৎ আমদানির সব প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। এ বছরই নেপাল থেকে বাংলাদেশে বিদ্যুৎ রপ্তানি শুরু হতে পারে।’ জানা যায়, ভারতীয় সঞ্চালন লাইন ব্যবহার করে নেপাল থেকে বাংলাদেশ সরকার বিদ্যুৎ কিনবে। আর এজন্য প্রতি ইউনিট জলবিদ্যুৎ কিনতে খরচ পড়বে ৮ টাকা ১৭ পয়সা। যার মধ্যে ভারতের সঞ্চালন মাশুল ও অন্যান্য খরচও আছে। ১১ জুন সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সভাপতিত্বে সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এ প্রস্তাব অনুমোদিত হয়। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সংস্কার ও সমন্বয়) মাহমুদুল হোসাইন খান। তিনি আরও জানান, ভারতীয় গ্রিড ব্যবহার করে এ বিদ্যুৎ আমদানি করতে ভারতকে ট্রেডিং মার্জিন হিসেবে দিতে হবে ইউনিটপ্রতি ঘণ্টায় দশমিক শূন্য ৫৯ ভারতীয় রুপি। পাঁচ বছরের জন্য এ বিদ্যুৎ কিনতে ৬৫০ কোটি টাকার একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে বিউবো। এনইএ এবং বিউবো এ চুক্তি করবে। এ বছর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেপাল সফরের কথা রয়েছে। বাংলাদেশে কবে থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ হবে বিষয়টি তখন নির্ধারণ করা হবে। বৈঠকসূত্র জানান, দুই থেকে আড়াই মাসের মধ্যে নেপালের বিদ্যুৎ বাংলাদেশে আসতে পারে। নেপাল থেকে বিদ্যুৎ আনার ক্ষেত্রে ভারতের মোজাফফরবাদ সাবস্টেশনে প্রতি কিলোওয়াট বিদ্যুতের দাম ধরা হচ্ছে ৬ দশমিক ৪০ ইউএস সেন্ট। আর ভারতের এনটিপিসি বিদ্যুৎ ভাইপার নিগম লিমিটেড (এনভিভিএন) ট্রেডিং মার্জিন পাবে দশমিক শূন্য ৫৯৫ ভারতীয় রুপি। সূত্র জানান, নেপাল থেকে বিদ্যুৎ আমদানিতে দরকার হবে ত্রিপক্ষীয় চুক্তি। আর এর মাধ্যমে নতুন যুগের সূচনা হবে। এর মধ্য দিয়ে অন্যান্য দেশ থেকে বাংলাদেশের জলবিদ্যুৎ আমদানির পথও খুলবে। ত্রিপক্ষীয় চুক্তি হলে দুই দিক থেকে লাভবান হবে বাংলাদেশ। শীতের সময় বাংলাদেশে বিদ্যুতের চাহিদা কমে যায়, তখন নেপালে থাকে শুষ্ক মৌসুম। দেশটিতে তখন বিদ্যুতের বাড়তি চাহিদা থাকে। ওই সময় চাইলে নেপালও বাংলাদেশ থেকে বিদ্যুৎ আমদানি করতে পারে।

স/প্র